26 Jun
2020

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-উপাচার্য (শিক্ষা) হলেন দুর্যোগ বিজ্ঞানের অধ্যাপক ড. মাকসুদ কামাল

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-উপাচার্য (শিক্ষা) পদে নিয়োগ লাভ করেছেন দুর্যোগ বিজ্ঞান ও ব্যবস্থাপনা বিভাগের অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল । মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সেলর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আদেশ, ১৯৭৩-এর ১৩(১) ধারা মোতাবেক তাঁকে ২৫ জুন ২০২০ বৃহস্পতিবার এই নিয়োগ প্রদান করেছেন। আগামী চার বছরের জন্য তাঁকে এই নিয়োগ প্রদান করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দফতর থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বৃহস্পতিবার উপাচার্য দফতরে কোভিড-১৯ উদ্ভূত পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে আনুষ্ঠানিকভাবে যোগদান ও দায়িত্বভার গ্রহণ করেন অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল। উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান নব-নিযুক্ত প্রো-উপাচার্যকে (শিক্ষা) আন্তরিক অভিনন্দন জানান এবং তাঁর সফলতা কামনা করেন। এসময় সিন্ডিকেট সদস্য ড. মো. মিজানুর রহমান, ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. সৈয়দ হুমায়ুন আখতার, স্যার এ এফ রহমান হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. নিজামুল হক ভূইয়া, নীল দলের যুগ্ম-আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মো. আব্দুস ছামাদ, আইসিটি সেল-এর পরিচালক অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আসিফ হোসেন খান, সহকারী প্রক্টর মো. আবদুর রহিম ও আবু হোসেন মুহম্মদ আহসান, ব্যবসায় প্রশাসন ইনস্টিটিউটের সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. রেজাউল কবির এবং খালেদ মাহমুদ উপস্থিত ছিলেন।

শিক্ষা জীবনের সকল স্তরে প্রথম বিভাগ/শ্রেণি অর্জন করেন এ এস এম মাকসুদ কামাল। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূতত্ত্ব বিভাগ থেকে তিনি ১ম শ্রেণিতে বি.এসসি (অনার্স) এবং এম.এসসি পাশ করেন তিনি। পরবর্তীকালে তিনি নেদারল্যান্ডসের Twente University’র মহাকাশ বিজ্ঞান বিষয়ক বিখ্যাত প্রতিষ্ঠান International Institute for Geo-Information Science and Earth Observation (ITC) থেকে Applied Engineering Geology বিষয়ে ১৯৯৭ সালে মাস্টার্স ডিগ্রি এবং জাপানের Tokyo Institute of Technology থেকে Earthquake Engineering বিষয়ে ২০০৪ সালে ডক্টর অব ইঞ্জিনিয়ারিং ডিগ্রি অর্জন করেন।

দেশি-বিদেশি peer-reviewed/impact factor journal-এ তাঁর পঞ্চাশোর্ধ্ব বৈজ্ঞানিক প্রবন্ধ এবং জাতীয় পর্যায়ে সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন সংস্থায় তাঁর প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে অসংখ্য নীতি-নির্ধারণী রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে। দেশি-বিদেশি একাধিক জার্নালে Editorial বোর্ডের সদস্য হিসেবেও দায়িত্ব পালন করছেন তিনি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূতত্ত্ব বিভাগে ২০০০ সালে প্রভাষক পদে যোগদান করেন এ এস এম মাকসুদ কামাল। এর আগে, তিনি বাংলাদেশ মহাকাশ গবেষণা ও দূর অনুধাবন প্রতিষ্ঠানের (স্পারসো) বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা হিসেবে ছয় বছর এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বোস সেন্টারের রিসার্চ ফেলো ও গবেষক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। ২০১০ সালে অধ্যাপক পদে নিয়োগপ্রাপ্ত হন তিনি। ২০১২ সালে তিনি আর্থ এন্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্সেস অনুষদভুক্ত দুর্যোগ বিজ্ঞান ও ব্যবস্থাপনা বিভাগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান নিযুক্ত হন এবং ২০১৭ সাল পর্যন্ত সফলতার সাথে চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেন। ২০১২ সাল থেকে অদ্যাবধি তিনি আর্থ এন্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্সেস অনুষদের নির্বাচিত (চার বার) ডিন হিসেবে দায়িত্বরত আছেন।

বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, ড. মাকসুদ কামাল মাস্টারদা সূর্যসেন হলের প্রাধ্যক্ষের দায়িত্বও পালন করেছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট এবং সিনেট সদস্য হিসেবেও বর্তমানে দায়িত্বরত আছেন। এছাড়াও, ড. কামাল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির তিন বার সাধারণ সম্পাদক পদে এবং চার বার সভাপতি পদে নির্বাচিত হন। বর্তমানেও তিনি সমিতির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনের মহাসচিব ছিলেন এবং একাদিক্রমে তিন বার সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করে চলেছেন। দেশে শিক্ষার মানোন্নয়ন এবং শিক্ষকদের মর্যাদা ও অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য সবসময় সক্রিয় ভূমিকা পালন করেছেন তিনি।

নগর দুর্যোগ বিশেষজ্ঞ হিসেবে ইউএনডিপি, সিডিএমপি’তে দায়িত্ব পালনসহ সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয় এবং প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন প্রকল্পে কারিগরী প্রধান উপদেষ্টা/বিশেষজ্ঞ সদস্য হিসেবেও কাজ করেছেন অধ্যাপক ড. মাকসুদ কামাল। বিভিন্ন দেশের স্বনামধন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে তাঁর সহযোগিতা ও গবেষণা প্রকল্প রয়েছে। জাতীয় গণমাধ্যমে তাঁর বিষয়ভিত্তিক লেখনী প্রকাশিত হয়ে থাকে। সমাজ উন্নয়ন ও দারিদ্র্য বিমোচনের জন্য কাজ করে আসছেন তিনি।

লেখক পরিচিতি

ডেস্ক রিপোর্ট
ডেস্ক রিপোর্ট
দুর্যোগ বিষয়ে সচেতনতা তৈরিই ‘দুর্যোগ অনুধাবন’এর লক্ষ্য। দুর্যোগ বিজ্ঞান; পরিবেশ; আবহাওয়া ও জলবায়ু; দুর্যোগ অর্থনীতি; জীবন প্রণালী; জিআইএস ও রিমোট সেন্সিং; দুর্যোগ বিপদাপন্নতা; সংঘাত; দুর্যোগ যোগাযোগ; দুর্যোগে মানবিকতা; দুর্যোগ, খাদ্য ও পুষ্টি; দুর্যোগ ও স্বাস্থ্য; দুর্যোগ সংশ্লিষ্ট নীতি ও আইন প্রভৃতি দুর্যোগ অনুধাবন আধেয়।

গণমাধ্যমে প্রকাশিত দুর্যোগ সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলোও থাকছে এখানে। অলাভজনক সংঘ হিসেবে কার্যক্রম পরিচালিত হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ইভেন্টস

  1. ১ বছর, ১ ব্যক্তি, ১ গাছ

    March 20 @ 8:00 am - December 25 @ 5:00 pm

ক্যাটাগরি